দরখাস্ত লেখার নিয়ম ২০২২ | আবেদন পত্র লেখার নিয়ম |

দরখাস্ত লেখার নিয়ম ২০২২ | আবেদন পত্র লেখার নিয়ম |

নানাপ্রয়োজনে আমাদের সরকারি-বেসরকারি নানা আবেদন পত্র লিখতে হয়।কখনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, ছুটি,বা বেতন মৌকুফের জন্য।কখনো বা চাকরি জন্য। কিংবা চাকরি থেকে ইস্তফার জন্য। ছোটবেলায় পাঠ্যবইয়ে  ‘শিক্ষা সরঞ্জাম কিনার জন্য টাকা চেয়ে পিতার নিটক পুত্রের/ নলকূপ বা সাঁকো চেয়ে স্থানীয় সরকারের নিকট আবেদনপত্র’ লেখা হয়তো অনেকেই শিখেছি। সময়ের ব্যবধানে সেসব মুখস্থ বিদ্যা অনেকেরই মস্তিষ্ক থেকে পুনরায় পুস্তকে প্রত্যাবর্তন করেছে। কালের বিবর্তনে টাকা চেয়ে পিতার নিকট পুত্রের/নলকূপ চেয়ে স্থানীয় সরকারের নিকট আবেদনপত্র লিখতে হয় তো হয় না।কিন্তু দরখাস্ত বা আবেদনপত্র লেখার প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে যায় নাই। নানাপ্রয়োজনে দরখাস্ত ঠিকই লিখতে হয়।তখন অনেক কসরত করে একটা দরখাস্ত লিখলেও আকর্ষণীয় হয়ে উঠে না।কখনো বা আত্মসম্মান বিসর্জন দিয়ে হতে হয় অন্যের দ্বারস্ত। তাই যারা আত্মসম্মান বিসর্জন না দিয়েই দরখাস্ত লেখার সঠিক পদ্ধতি শিখতে চান,তাদের জন্য এই আর্টিকেল। কাজের ধরণ অনুযায়ী দরখাস্তের বিন্যাসও হয় নানারকম।তবে মূলবিষয় প্রায় কাছাকাছি। তাই একরকম দরখাস্ত আয়ত্ত করে নিলেই সবরকম দরখাস্ত লেখা সহজ হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ। 

দরখাস্ত লেখার নিয়ম

  • ১-তারিখ,দরখাস্তের ডানে উপরের দিকে তারিখ দিতে হবে।তারিখ অবশ্যই দরখাস্ত জমা দেওয়ার তারিখ দিতে হবে।দরখাস্ত লেখার তারিখ নয়।
  • ২-বরাবরবরাবর লিখে যার উদ্দেশ্যে দরখাস্ত লেখা হচ্ছে তার পদবি, প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা লিখতে হবে। 
  • ৩-সালাম,মূল প্রসঙ্গ শুরু করার পূর্বে সালাম দিতে হবে।এতে আবেদনের ভাষা আরো মার্জিত ও বিনীত হয়। 
  • ৪-বিষয়বিষয় লিখে দরখাস্তের বিষয় কী,তা লিখতে হবে।অর্থাৎ কীসের দরখাস্ত তা।যেমন চাকরির আবেদন, চাকরি থেকে ইস্তফা, দায়ীত্ব থেকে পদত্যাগ ইত্যাদি। 
  • ৫-সম্ভাষণজনাব,মহোদয়, মহাশয়, এমন ভক্তিপূর্ণ সম্বোধন দিয়ে কথা শুরু করতে হবে। 
  • ৬-সমাপ্তিঅতএব লিখে মূল বক্ত তুলে ধরতে হবে।এবং সমাপ্তি টানতে হবে। 
  • ৭-পরিচয়দরখাস্তের শেষে নিবেদক লিখে নিজের পরিচয় লিখতে হবে। 
  • ৮-তথ্য/প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্তি কর্তৃপক্ষের তলবকৃত বা, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দরখাস্তের সাথে সংযুক্ত করে দিতে হবে। 
দরখাস্ত লেখার নিয়ম
দরখাস্ত লেখার নিয়ম

আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

  • –দরখাস্তের উভয় পাশে আধা ইঞ্চি পরিমাণ জায়গা খালি রাখতে হবে।এতে দরখাস্তের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়।দেখতে আকর্ষণীয় লাগে।
  • হস্তলিখিত দরখাস্তের ক্ষেত্রে মার্জিন করা খাতা পরিহার করতে হবে।
  • সুন্দর হস্তলিপিতে দরখাস্ত লিখতে হবে।এলোমেলো হস্তলিপির দরখাস্তে প্রথম দৃষ্টিতেই অবজ্ঞা তৈরি হয়।
  • দরখাস্ত অযথা বড় করা যাবে না।অযথাই লতানো-প্যাঁচানো দরখাস্তে অনীহা সৃষ্টি হওয়াই স্বাভাবিক। তাই যথাসাধ্য ছোট,কিন্তু গোছানে দরখাস্ত  লেখার চেষ্টা করতে হবে।
  • প্রয়োজনীয় তথ্য যেমন বাদ দেওয়া যাবে না,তেমনি অহেতুক তথ্য সংযুক্তি থেকেও বিরত থাকা কাম্য।

আরো পড়ুন

দরখাস্ত লেখার নমুনা

                               তারিখ…………
বরাবর,
         মাননীয় অধ্যক্ষ মহোদয়,
         জামেয়া ইসলামীয়া মাইজদি,
         নোয়াখালী, বাংলাদেশ,
 
        আসসালামু আলাইকুম!
 
বিষয়:- বিনাবেতনে অধ্যয়নে আবেদন।
 
জনাব,বিনীত নিবেদন এই যে,আমি মুহাম্মদ …………,আপনার প্রতিষ্ঠানের নাহবেমীর জামাতে অধ্যয়নরত একজন নিয়মিত ছাত্র।গত বার্ষিক ইমতিহানে মীযান জামাত থেকে তৃতীয় স্থান অর্জন করি।
 
আমার বাবা পেশায় কৃষক। আর্থিকভাবে অসচ্ছল।আমরা চার ভাইবোন। পরিবারে উপার্জনক্ষম একমাত্র বাবা।আমাদের চার ভাইবোনের পড়াশোনা, ভরণপোষণ, অসুস্থ মায়ের চিকিৎসা, সাংসারিক ব্যয়ভার বহন করা বাবার পক্ষে দুঃসাধ্য। ফলে আমাদের পড়ালেখা বন্ধ হওয়ার উপক্রম।
 
অতএব,
       আপনার কাছে সবিনয় নিবেদন এই যে,আমার থাকাখাওয়া, ভরণপোষণ, শিক্ষা সরঞ্জাম সহ বিনাবেতনে অধ্যয়নের সুযোগ করে দিলে কৃতজ্ঞ থাকবো।
 
নিবেদক
মুহাম্মদ ………
শ্রেণী….

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে অগ্রিম ছুটি চেয়ে আবেদন পত্রের নমুনা

২৫/১০/’২১
বরাবর,
প্রধান শিক্ষক,
জি এম হাট উচ্চবিদ্যালয়
ফুলগাজী, ফেণী।

বিষয়ঃ একদিনের নৈমিত্তিক ছুটির জন্যে আবেদন।

মহোদয়,
বিনীত নিবেদন এই যে আমি আপনার বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর একজন নিয়মিত ছাত্র। দীর্ঘ দিন ধরে আমার আব্বা অসুস্থতা জনিত সমস্যায় ভুগছেন, তাই আগামীকাল ২৫/১০/২০২১ উনাকে ডাক্তার দেখানোর প্রেক্ষিতে আমি বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকতে পারব না৷

অতএব,সবিনয়ে নিবেদন এই যে উপরোক্ত বিষয় বিবেচনা পূর্বক আমাকে একদিনের ছুটি মঞ্জুর করে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক,
হোসেন মোহাম্মদ আল ফয়সাল
রোলঃ ১২
শ্রেণীঃ দশম
শাখাঃ ‘ক’

প্রধান শিক্ষক,
জি এম হাট উচ্চবিদ্যালয়।

চাকরিস্থল থেকে ছুটি চেয়ে আবেদন পত্রের নমুনা

২৫/১০/’২১
বরাবর,
জেনারেল ম্যানেজার,
প্যাসিফিক গ্রুপ
ইপিজেড, চট্টগ্রাম।

বিষয়ঃ ৩ দিনের অগ্রিম ছুটি চেয়ে আবেদন।

জনাব,
যথাবিহিত সম্মান পূর্বক নিবেদন এই যে,আমি আপনার প্রতিষ্ঠানের কাটিং সেকশনের সিনিয়র সুপারভাইজার হিসেবে কর্মে নিয়োজিত একজন নিয়মিত কর্মী। আগামী ০৩/১১/২০২১ হতে ০৬/১১/২০২১ আমার একমাত্র ছোট ভাইয়ের বিয়ের তারিখ ধার্য করা হয়েছে। তাই আমি উক্ত ৩ দিবস কর্মক্ষেত্রে যোগদান করতে পারব না।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন উক্ত পারিবারিক অনুষ্ঠানে আমাকে যোগদানের সুযোগ করে দিতে অনুগ্রহ করে উক্ত দিন গুলোর ছুটি দান করে চীর কৃতজ্ঞ করবেন৷

বিনীত নিবেদক,
আখতারুজ্জামান খন্দকার,
ডিপার্টমেন্টঃ কার্টিং
পদঃ সিনিয়র সুপারভাইজার

উপবৃত্তির আবেদন পত্র উদাহরণ

২৫/১০/’২১

বরাবর,
প্রধান শিক্ষক
হাজী পাড়া উচ্চবিদ্যালয়
জিলংঝা,কক্সবাজার।

বিষয়ঃ উপবৃত্তির জন্য আবেদন।

মহোদয়,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আকলিমা আক্তার আপনার বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর একজন নিয়মিত ছাত্রী। আমার বাবা একজন সাধারণ কৃষক, গত বন্যায় তাঁর ফসলের ব্যাপক ক্ষতির কারণে বেশ কিছুদিন ধরে আমাদের পাঁচ সদস্যের পরিবারের খরচ, এবং আমাদের তিন ভাই-বোনের পড়ার খরচ বহন করা কষ্টসাধ্য হচ্ছে তাঁর পক্ষে। এই দিকে তিনি আমাদের পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি।

অতএব,মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন, উপরোক্ত বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকে উপবৃত্তির ব্যবস্থা করে আমার পড়ার সুযোগ করে দিলে চীর কৃতজ্ঞ থাকব।

বিনীত নিবেদক
আকলিমা আক্তার
শ্রেণীঃ অষ্টম
রোলঃ ৩
শাখাঃ ‘ক’

৪.ভর্তি বাতিল ও মার্কশীট উত্তলণের আবেদন

২৫/১০/’২১
বরাবর,
ডিপার্টমেন্ট হেড, সমাজবিজ্ঞান
চট্টগ্রাম কলেজ,
চট্টগ্রাম।

জনাব,
যথা বিহিত সম্মানের সাথে উল্লেখ করছি যে,আমি হাসনাত করিম, ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে আপনার সমাজবিজ্ঞান বিভাগে প্রথম বর্ষের ছাত্র। বর্তমানে আমি ইংরেজি বিষয়ে ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির সুযোগ পাওয়ায় পূর্বের ভর্তি বাতিল করতে ইচ্ছুক। 

অতএব, জনাবের নিকট আকুল আবেদন উপরোক্ত বিষয় বিবেচনা পূর্বক মূল মার্কশীট উত্তলনের জন্যে জনাবের নিকট প্রার্থনা করছি।

বিনীত নিবেদক
হাসনাত করিম,
সমাজবিজ্ঞান বিভাগ
স্নাতক ১ম বর্ষ।
সেশনঃ ‘২০-‘২১

৫.চাকরিতে নিয়োগের আবেদ

২৫/১০/২০২১

বরাবর,
মহাপরিচালক বাংলাদেশ রেলওয়ে
মহাখালী, ১২২৭ ঢাকা।

বিষয়ঃ চাকরিতে নিয়োগের আবেদন।

মহোদয়,
সবিনয় নিবেদন এই যে আমি, গত ২০/০৮/২০২১ বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক অনুষ্ঠিত সহকারি প্রকৌশলী নিয়োগ পশ্চিম অঞ্চলের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি।  আমার রেজিষ্ট্রেশন নাম্বারঃ ১২০০৩। প্রায় ২ মাস হয়ে গেলেও আমি আমার চাকরিতে নিয়োগের চিঠি পাইনি।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আকুল প্রার্থনা উক্ত বিষয়টি যথাযথ বিবেচনা করে আমাকে চাকরিতে নিয়োগের সু্যোগ করে দিয়ে বাধিত করবেন।

বিনীত নিবেদক
হোসনে আরা বেগম
সহকারি প্রকৌশলি
বাংলাদেশ রেলওয়ে, পশ্চিম অঞ্চল।

৬. এলাকার উন্নায়ণ চেয়ে আবেদনঃ

২৫/১০/’২১
বরাবর,
উপজেলা চেয়ারম্যান
গাইবান্ধা।

জনাব,
আপনার সদয় অবগতির জন্যে জানাচ্ছি যে, আমরা গাইবান্ধা সদর দক্ষিণের বাসিন্দা,দীর্ঘদিন ধরে আমাদের এলাকার মূল সড়কটি বেহাল অবস্থায় রয়েছে। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী সহ, মসজিদের মোসল্লিদের উক্ত পথ দিয়ে যেতে বেশ অসুবিধা হচ্ছে। তাই আমরা সকল এলাকাবাসি উক্ত সড়কটির উন্নায়ণ কর্ম সম্পাদনের জন্যে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

অতএব,মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন সড়কটির যথাযথ সংস্কারের কাজ সম্পন্ন করলে আমরা আপনার নিকট কৃতজ্ঞ থাকব।

বিনীত নিবেদন
গাইবান্ধা সদর দক্ষণির বাসিন্দাদের পক্ষ হতে,
আকবর চৌধুরী
গাইবান্ধা সদর।

mahmuda tinni

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *