সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম।

দেশের প্রথম সারির ব্যাংক গুলোর মধ্যে সোনালী ব্যাংক অন্যতম। জনপ্রিয়তার দিকে থেকে সরকারি এই ব্যাংকটি এগিয়ে। তাই এই ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে আপনাকে এর প্রাথমিক ধারণা দিবে আমাদের এই আর্টিকেলটি। এটি পড়ার পর আপনি জানবেন কিভাবে  সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে হয়। কারণ এই আর্টিকেলে আমরা ধাপে ধাপে আলোচনা করব কিভাবে সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খোলা যায়।

কেনো সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুলবেন?

এটি একটি জরুরি প্রশ্ন হতে পারে যে এত ব্যাংক থাকতে কেনো আমি বা আপনি সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে যাব৷ কারণ হলো এটি নির্ভরযোগ্য এবং এর সুদের নীতিমালা অন্যান্য ব্যাংক হতে আলাদা। তাই নিরাপদ ভাবে টাকা লেনদেন করতে ও টাকা জমা রাখতে এর থেকে ভালো পছন্দ আর কি হতে পারে। তাই সোনালী ব্যাংকে আপনি একাউন্ট খুলতে পারেন৷ তবে তা কেবল তাদের নীতিমালা সমূহ আপনার পছন্দে হলে। কেনো না কে কোন ব্যাংকে একাউন্ট খুলবে তা যার যার ব্যক্তিগত পছন্দ। আমরা এখানে আপনাকে কেবল পরামর্শই দিতে পারি।
তাই আসুন জেনে নি সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে।

যা যা ডকুমেন্টস লাগবেঃ

সব ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে হলেই কিছুনা কিছু ডকুমেন্টস দিতে হয়। যা প্রাথমিক কাগজপত্র হিসেবে ধরা হয়। তাই সোনালী ব্যাংকও আপনার কাছ হতে কিছু দরকারি কাগজপত্র চাইবে। যেমন-

১.আপনার ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
২.আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ড।
৩.আইডি কার্ড না থাকলে ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা পাসপোর্ট কপি।
৪.আপনার নমিনির এক কপি ছবি।
৫.নমিনির ন্যাশনাল আইডি কার্ড অথবা জন্মনিবন্ধন কার্ড।
৬. সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে আপনাকে অবশ্যই বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে।

এই ডকুমেন্টস গুলো ছাড়া অন্য কোন ডকুমেন্টস যদি ব্যাংক চায় তাহলে আপনি তা দিতেই হবে। এসকল ডকুমেন্টস নিয়ে আপনি আপনার নিকটস্থ কোন সোনালী ব্যাংক শাখায় যাবেন। সেখানে আপনাকে একটি ফর্ম দেয়া হবে।  সেটি ব্যাংক হিসেব খোলার ফর্ম। অর্থাৎ প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সাথে এই ফর্ম ও আপনাকে জমা দিতে হবে।তাহলে আপনি একাউন্ট খুলতে পারবেন।
এছাড়া আপনি চাইলে নিচের লিংক হতে ডাউনলোড করে তা প্রিন্ট করে পূরণ করে নিয়ে জমা দিতে পারেন।

https://www.sonalibank.com.bd/download.php

যথাযথ তথ্য দিয়ে পূরণ করে এটি অন্যান্য ডকুমেন্টস এর সাথে ব্যাংকে গিয়ে জমা দিবেন। তারপর প্রয়োজননীয় কাজ তারা বুঝিয়ে দিবে।

সেভিংস একাউন্ট নিয়ে আরো কিছু তথ্যঃ

সেভিংস একাউন্ট খোলার মাধ্যমে আপনি নানা সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন৷ যেমন- আপনাকে ১০০০ টাকা জামানত রাখতে হবে এবং সাথে সাথে একটি চেক বই দেয়া হবে। সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুললে যে কোন দেশ থেকে আপনি রেমিট্যান্স উত্তোলন করতে পারবেন। সেভিংস একাউন্ট এর অন্যতম সুবিধা যে কোন শাখা থেকে অন্য শাখায় টাকা দ্রুত লেনদেন করা যায়। এছাড়াও সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট খুললে নানা রকম সুবিধা ভোগ করা যায়৷ যা একাউন্ট খোলার সময় আপনি ব্যাংক কর্মকর্তা কে জিজ্ঞেস করে নিতে পারেন।

সোনালী ব্যাংক সুদের হারঃ

সুদের হার কম বেশি সব ব্যাংকেই প্রযোজ্য। ব্যাংক গুলোর নীতিমালা অনুসারে সুদের হার ভিন্ন হয়ে থাকে। তেমনি সোনালী ব্যাংকের সুদের হারও আলাদা। আপনি সেভিংস একাউন্ট খুললে কি ধরণের সুদের হার প্রযোজ্য হবে তাও তারা স্পষ্টত বর্ণনা করেছে৷ নিচের লিংক হতে ডাউনলোড করে জেনে নিন সোনালী ব্যাংক কি ধরণের সুদের হার ধার্য করেছে তাদের গ্রাহকদের জন্যে।

https://www.sonalibank.com.bd/PDF_file/intt_rates.pdf

উক্ত পিডিএফটি ডাউনলোড করলে এতে বিস্তারিত তথ্য বর্ণিত আছে দেখবেন। এখান থেকে আপনার একাউন্ট এর ধরণ অনুযায়ী সুদের হারের তথ্য আপনি পেয়ে যাবেন।

পরিশেষে বলব, আশা করি আমাদের দেয়া তথ্য আপনার একাউন্ট খোলার পক্ষ যথেষ্ট । এর বাইরে আমরা কিছু বাদ দিয়ে থাকলে তা ক্ষমার চোখে দেখবেন। এগুলোকে প্রাথমিক তথ্য হিসেবে ধরে নিয়ে বিস্তারিত সরাসরি ব্যাংক হতে জেনে নিতে পারেন।

mahmuda tinni

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *